1. khaircox10@gmail.com : admin :
টপ-৫ এর চ্যালেঞ্জগুলো ট্রেকিং, ট্রেসিং, টেস্টিং ও ট্রিটিং করতে হবে - coxsbazartimes24.com
শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:০৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
উত্তর ধূরুং ইউপি নির্বাচন: বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে আওয়ামী লীগ নেতাদের অবস্থান! পর্যটন প্রতিমন্ত্রীর সাথে টুয়াক নেতৃবৃন্দের সাক্ষাত বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন কক্সবাজার জেলা কমিটি অনুমোদন কক্সবাজার চেম্বার অফ কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রী’র উদ্যোগে উপজেলা পর্যায়ে উদ্যোক্তাদের দক্ষতা উন্নয়ন কর্মসূচির উদ্বোধন মেয়র মুজিবের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ ও শুভেচ্ছা বিনিময় করলেন টুয়াক নেতৃবৃন্দ ডিসি, এসপি ও পৌর মেয়রের সঙ্গে সাক্ষাত করলেন টুয়াকের নবনির্বাচিত নেতৃবৃন্দ টুয়াকের সভাপতি আনোয়ার, সম্পাদক টিটু নির্বাচনের ইশতেহারে যা বললেন টুয়াকের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী টিটু ইউএসএআইডি এর অর্থায়নে ও রিলিফ ইন্টারন্যাশনাল এর উদ্যোগে “কোভিড-১৯ প্যানডেমিক ‍সিচুয়েশন অব কক্সবাজার” শীর্ষক ওয়েবিনার দুদক কর্মকর্তার বদলি চ্যালেঞ্জ করা রিটকারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ

Ads

টপ-৫ এর চ্যালেঞ্জগুলো ট্রেকিং, ট্রেসিং, টেস্টিং ও ট্রিটিং করতে হবে

  • আপডেট সময় : রবিবার, ২১ জুন, ২০২০
  • ৯৫ বার ভিউ

ডাঃ মোহাম্মদ শাহজাহান নাজিরঃ
কক্সবাজার জেলার রোগীর সংখ্যা ২০০৭।দেখতে দেখতে ২ হাজার পার হল। বিগত ২ সপ্তাহ কার্ফু টাইপের লকডাউন না হলে সংখ্যাটা আরও বাড়ত। লকডাউনে স্বেচ্ছাসেবক এবং পৌরসভার যৌথ অংশগ্রহণ চোখে পড়ার মত।
#১৯/৬/২০ তারিখে সদর উপজেলায় ৭২ জন, রোগী দেখে অনেকে ভয় পেয়েছেন। কিন্তু পরিসংখ্যান দেখা যায় স্বাভাবিক। সেদিন ৭২ এর মধ্যে সদর হাসপাতালে ভর্তি বিভিন্ন উপজেলা রোগী ও বিভিন্ন বাহিনীর সদরের বাইরের রোগীদের বাদ দিলে রোগীর সংখ্যা ৬০। মানে, ৪২৯ স্যাম্পলে ৬০ রোগী মানে ১৩.৯৮% গতকাল (২০/৬/২০) ৭৮ স্যাম্পল ১২ জন রোগী মানে ১৫.৩৮%.। তবে কতগুলো চ্যালেঞ্জ এর মুখোমুখি হচ্ছে , যেমন,
#অধিকাংশ ক্ষেত্রে রোগীরা ফরম পূরণের সময় শুধু কক্সবাজার লিখে থাকেন, কক্সবাজার হচ্ছে কুতবদিয়া থেকে সেন্টমার্টিন পর্যন্ত। খুঁজে পেতে হিমশিম খাচ্ছে স্বাস্থ্য কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবীরা।
কারণ, তাদের দেওয়া মোবাইলে ফোন করলেও পাওয়া যাচ্ছে না।
এতে তাদের চিকিৎসার আওতায় আনতে না পারলে অভিযান ব্যর্থ হবে।
#২০০০ রোগীর পেশা হিসেবে ভাগ করলে, যদি দেখি টপ-৫ পেশার লোক
১. ছাত্র-ছাত্রী ২২.২৩%
২. এনজিও প্রতিনিধি ১৬.৭২%
৩.স্বাস্থ্যসেবা দানকারী ৮.৯৬%
৪. বিভিন্ন বাহিনীর সদস্য ৭.৫%
৫.ব্যাংকার ৪.৪%।
বাকিরা অন্যান্য পেশার। এখানে রোহিঙ্গা যদি হিসাব করি ৩.০%। রোহিঙ্গাদের মাঝখানে অন্য পেশার যেমন, ফার্মাসিস্ট, পল্লী চিকিতসক, ব্যবসায়ী, দিনমুজুর অনেক আছে। মৃত্যুর সংখ্যা ও ১.৫%.।
তাহলে টপ-৫ এই পেশা গুলিকে এড্রেস করে, উনাদের চ্যালেঞ্জ গুলি খুঁজে বের করে, ট্রেকিং, ট্রেসিং, টেস্টিং ও ট্রিটিং এর আওতায় নিয়ে আসতে পারলে এবং তাদের মধ্যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নিয়ম মোতাবেক “সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ” বাস্তবায়ন করতে পারলে কক্সবাজার জেলা করোনা মুক্ত হবে, ইনশাআল্লাহ।

ডাঃ মোহাম্মদ শাহজাহান নাজির
সহকারী অধ্যাপক
সংক্রামক রোগ ও ট্রপিক্যাল মেডিসিন
কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল।
২১/৬/২০

খবরটি সবার মাঝে শেয়ার করেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সব ধরনের নিউজ দেখুন
© All rights reserved © 2020 coxsbazartimes24
Theme Customized By CoxsMultimedia