1. khaircox10@gmail.com : admin :
হাসান আলী: ইসলামপুর ইউনিয়নের সম্ভাবনাময় নেতৃত্ব - coxsbazartimes24.com
শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:২৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
উত্তর ধূরুং ইউপি নির্বাচন: বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে আওয়ামী লীগ নেতাদের অবস্থান! পর্যটন প্রতিমন্ত্রীর সাথে টুয়াক নেতৃবৃন্দের সাক্ষাত বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন কক্সবাজার জেলা কমিটি অনুমোদন কক্সবাজার চেম্বার অফ কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রী’র উদ্যোগে উপজেলা পর্যায়ে উদ্যোক্তাদের দক্ষতা উন্নয়ন কর্মসূচির উদ্বোধন মেয়র মুজিবের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ ও শুভেচ্ছা বিনিময় করলেন টুয়াক নেতৃবৃন্দ ডিসি, এসপি ও পৌর মেয়রের সঙ্গে সাক্ষাত করলেন টুয়াকের নবনির্বাচিত নেতৃবৃন্দ টুয়াকের সভাপতি আনোয়ার, সম্পাদক টিটু নির্বাচনের ইশতেহারে যা বললেন টুয়াকের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী টিটু ইউএসএআইডি এর অর্থায়নে ও রিলিফ ইন্টারন্যাশনাল এর উদ্যোগে “কোভিড-১৯ প্যানডেমিক ‍সিচুয়েশন অব কক্সবাজার” শীর্ষক ওয়েবিনার দুদক কর্মকর্তার বদলি চ্যালেঞ্জ করা রিটকারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ

Ads

হাসান আলী: ইসলামপুর ইউনিয়নের সম্ভাবনাময় নেতৃত্ব

  • আপডেট সময় : শনিবার, ২১ নভেম্বর, ২০২০
  • ৯৩ বার ভিউ

নিজস্ব প্রতিবেদক:
কক্সবাজার সদর উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের ধর্মেরছড়া গ্রামে ১৯৮২ সালের ১৮ মার্চ এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহন করেন তরুণ ব্যবসায়ী হাসান আলী।
তার পিতা মরহুম আলহাজ্ব আলী হোসেন ছিলেন সমসাময়িক কালের একজন সমাজ সেবক ব্যক্তি।
তার বড় ভাই মরহুম আলহাজ্ব মনজুর আলম চেয়ারম্যান স্বাধীন বাংলাদেশের জন্মলগ্ন থেকেই নিয়োজিত আছেন নিবেদিত প্রাণ সক্রিয় আওয়ামীলীগ কর্মি হিসেবে।
তিনি একাধারে ইসলামপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতিসহ বিভিন্ন গুরত্বপূর্ণ দায়িত্ব খুবই দক্ষতা ও নিষ্ঠার সাথে পালন করেছেন।
যার কারনে এলাকায় তাঁর সুখ্যাতি রয়েছে গরীবের বন্ধু নামে।
বড় ভাই মনজুর চেয়ারম্যানের মৃত্যুর পর হাল ধরেন তারই সহোদর হাসান আলী। বর্তমানে তিনি গরীবের বন্ধুর ছায়াকপি হিসাবে মাঠ ঘাট চষে বেড়াচ্ছেন।
বর্ণাঢ্য এ রাজনৈতিক পরিবারে বেড়ে উঠা হাসান আলীর স্কুল জীবন শুরু হয় নাপিতখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে।
১৯৯৭ সালে এসএসসি পাশের পর তিনি ভর্তি হন চট্টগ্রাম হাটহাজারী কলেজে।
অদম্য মেধাবী এই ছাত্রনেতা ১৯৯৯ সালে এইচএসসি এবং ২০০১ সালে ডিগ্রি অর্জন করেন।
পরবর্তীতে চট্টগ্রাম সাউর্দান ইউনিভার্সিটিতে এলএলবি নিয়ে পড়াশোনা করেন।
কলেজ জীবনে ছাত্রলীগের সাথে জড়িত হয়ে বিএনপি ক্ষমতায় আসার পর দেশের অন্যান্য স্থানের মতো প্রশাসনিক ও রাজনৈতিক বাঁধার মুখে তিনি একটি দিনের জন্যও থেমে থাকেননি।
বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ অন্তপ্রাণ এই তরুণ বিভিন্ন ক্রীড়া ও সামাজিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সংগঠিত করতে থাকেন শত সহস্র তরুণকে।
মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ছড়িয়ে দিতে থাকেন ইসলামপুরের সকল ছাত্র, যুবক ও তরুণদের মাঝে।
নিজ উদ্যোগে তিনি গড়ে তোলেন মরহুম মনজুর আলম চেয়ারম্যান স্মৃতি সংসদ নামক একটি সামাজিক, সাংষ্কৃতিক সংগঠন।
পরবর্তীতে তিনি ইসলামপুর স্লুইচ গেইট বাজার পরিচালনা কমিটির সভাপতিও নির্বাচিত হন।
একই সাথে তিনি ধর্মেরছড়া কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সদস্যও।
বঙ্গবন্ধুর আদর্শের অন্তপ্রাণ এই ছাত্র নেতা ছাত্রজীবন শেষে তিনি জড়িয়ে পড়েন আওয়ামী রাজনীতিতে।
হাজারো কর্মী তৈরীর এই সুনিপুন কারিগর বঙ্গবন্ধুর আদর্শ সাধারণ মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দিতে নিরলসভাবে কাজ করতে থাকেন।
খুবই অল্প সময়ে তিনি জেলা-উপজেলার নেতা-কর্মিদের কাছের মানুষে পরিনত হন।
সুখ দুখ আনন্দ বেদনায় তিনি তাদের পাশে থেকে তাদের আস্থা ও ভরসার প্রতিক হয়ে উঠেন।
কর্মি অন্তপ্রাণ এই নেতা ইসলামপুরের একজন সচ্চ লবণ ব্যবসায়ী। তিনি ইসলামপুর ভাই ভাই লবণ ক্রাশিং ইন্ড্রাট্রিজের সত্বাধিকারী।
যতদুর জানা গেছে, বিগত সময়ে বিপুল ভোটের ব্যবধানে তার বড় ভাই মরহুম মনজুর আলম ইসলামপুরের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে তার নিরলস প্রচেষ্টায় অল্পকিছু দিনের মাঝে এলাকায় রাস্তা, ঘাট, ব্রীজ, কালভার্ট নির্মানের পাশাপাশি সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত একটি ইউনিয়ন হিসাবে সর্বত্র সুনাম ছড়িয়ে পড়ে।
সাধারণ মানুষের পাশে থেকে তাদের ভাগ্য উন্নয়নে আন্তরিক প্রচেষ্টার ফল পুরস্কারস্বরূপ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ইসলামপুর ইউপি’র চেয়ারম্যান পদের জন্য আবারও মনজুর আলমকে দলীয় মনোনয়ন দেন।
নেতৃত্বের গুনাবলি, শিষ্টাচার , মানবিক মুল্যবোধ, সাধারন মানুষের অভাব অভিযোগ শোনার অপরিসীম ধৈর্য্য তাকে নেতা-কর্মিদের শেষ আশ্রয়স্থলে পরিনত করে।
নানা প্রাকৃতিক দুর্যোগ, ঘুর্ণিঝড়, জলোচ্ছ্বাসে তিনি ছুটে যান প্রত্যন্ত প্রান্তিক মানুষের কাছে, তাদেরকে সতর্ক করেন, সাহায্য দেন, সমবেদনা জানান। সমাজের অসহায় গরীব মানুষের পাশে আজন্ম তিনি থেকেছেন অভিভাবকের ভুমিকায়।
কারও ঘর নেই, কেউ অসুস্থ, কেউ মেয়ে বিয়ে দিতে পারছেন না, কেউ অভাব অনটনে আছেন প্রত্যেককেই তিনি নিজের সাধ্যমত সহযোগীতা করেছেন।
ছাত্র অবস্থা থেকেই তারই সহোদর হাসান আলী তার মরহুম বড় ভাইয়ের এই মূল্যবোধগুলো অত্যান্ত যত্ন করে লালন করে আসছেন।
যার কারনে এইসব গুনাবলী তাকে একজন নেতা থেকে ইসলামপুরের গণমানুষের আপনজন হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করেছে।
ছাত্র, শিক্ষক ইমাম, মুয়াজ্জিন, ব্যবসায়ী থেকে শুরু করে খেটে খাওয়া কুলি মজুর পর্যন্ত সমাজের সকল শ্রেণী পেশার মানুষের কাছে বর্তমানে হাসান আলী হয়ে উঠেছেন তাদের আপনজন।
জনসেবার পাশাপাশি মুজিব আদর্শের এই অকুতোভয় সৈনিক অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ সমাজের সাধারন মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে।
তাইতো তিনি নিজ উদ্দোগে প্রতিষ্ঠা করেন মরহুম মনজুর আলম চেয়ারম্যান স্মৃতি সংসদ।
নতুন কর্মি সৃষ্টির লক্ষ্যে তিনি এ সংগঠনটির ব্যানারে ইসলামপুরে আয়োজন করতে থাকেন বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠান।
নানা প্রতিকূল পরিবেশের মাঝেও অদ্যবদি এই সংগঠনটি মুজিব সৈনিক তৈরীর কর্মকান্ড অব্যাহত রেখেছে।
খেলার ছলে যুবকদের সংগঠিত করার উদ্দ্যেশ্যে তিনি নিজস্ব উদ্যোগে চালু করেন, হাসান আলী গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট নামে একটি অত্যন্ত জমজমাট ও সফল ফুটবল টুর্ণামেন্ট।
একজন দক্ষ সংগঠক হিসাবে তিনি বর্তমানে টুর্নামেন্ট পরিচালনা করে আসছেন।
শিক্ষানূরাগী ও মরহুম মনজুর চেয়ারম্যানের ছোট ভাই হাসান আলী তাঁর মরহুম বড় ভাইয়ের শুন্যস্থান পুরন করতে আগামী ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর ঘোষনা দিয়েছেন।
হাসান আলী ইতিমধ্যে সমাজ সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রেখে এলাকার সর্বস্থরের মানুষের মন জয় করেছেন। এলাকার মানুষের মুখে মুখে শোনা যাচ্ছে তাঁর নাম।
সম্ভ্রান্ত পরিবারের ছেলে ও একজন প্রসিদ্ধ লবণ ব্যবসায়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হলে এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন হবে এমনটায় মনে করছেন এলাকাবাসী।
হাসান আলী বলেন, ইসলামপুরের জনগণ যদি আমাকে তাদের সেবক হিসেবে নির্বাচিত করেন আমি এলাকাকে মাদকমুক্ত করে উন্নয়নের মাধ্যমে একটি সুন্দর সুশৃঙ্খল সমাজ নির্মাণ করে সদর উপজেলার মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তুলব।
তিনি আরো বলেন, তরুণরা এখন সারাদেশে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্তের ছেলে-মেয়েরা বিশ্বের বিভিন্ন দেশেও নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তরুণরা এখন অনেক এগিয়ে।
বিভিন্ন দপ্তরে ও জনপ্রতিনিধিত্বের দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন তরুণরাই। তারুণ্যে উচ্ছাসে এগিয়ে যাচ্ছে স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ।
দেশের বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদে অনেক উদিয়মান তরুণ জনপ্রতিনিধি হয়ে সুনামের সাথে দায়িত্বপালন করে যাচ্ছেন।
আমি এখনো তরুণ। তরুণরা এখন খুব বেশী প্রাধান্য পাচ্ছেন। তবে এলাকার মানুষের উন্নয়নে ও অসহায় মানুষের পাশে এগিয়ে আসতে পারলে নিজেকে অনেক ধন্য ও গর্বিত মনে করি।
মুলতঃ মানুষের সেবা করার মনমানসিকতা নিয়ে আগামী নির্বাচনে মানুষের বুক ভরা ভালবাসা নিয়ে ইসলামপুর ইউপির চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করবো ইনশআল্লাহ।
এলাকাবাসীর সেবক হয়ে আজীবন সমাজের জন্য কাজ করতে তিনি সকলের সহযোগীতা কামনা করছেন।

খবরটি সবার মাঝে শেয়ার করেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সব ধরনের নিউজ দেখুন
© All rights reserved © 2020 coxsbazartimes24
Theme Customized By CoxsMultimedia